best-beauty

বিডি বাজেট বিউটির দোকান বন্ধ করে দেওয়া হল!!!

বুধবার অধিদপ্তরের নিয়মিত অভিযানে ওই মার্কেটের আরও অনেকগুলো প্রসাধনী ও খাদ্য পণ্যের দোকানকে বিভিন্ন অপরাধে জরিমানা করা হয়। ফেইসবুক ও অন্যান্য অনলাইন প্ল্যাটফর্মের পাশাপাশি রাজধানীর ধানমন্ডি, পান্থপথের বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক, বেইলি রোড ও চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিপণন কেন্দ্র রয়েছে বিডি বাজেট বিউটির।

Contact Of Sales Agent For Buying Ticket

banner

আমদানির তথ্য উল্লেখ না করে পণ্য বিক্রির জন্য এর আগেও প্রতিষ্ঠানটিকে সতর্ক করা হয়েছিল বলে ভোক্তা অধিকারের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। ডিএনসিআরপির ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমদানি তথ্যবিহীন পণ্য শুল্ক ফাঁকি দিয়ে এসেছে নাকি চকবাজার কিংবা জিঞ্জিরায় ভেজাল মিশিয়ে তৈরি করা হয়েছে ভোক্তার পক্ষে তা জানা সম্ভব নয়। সেজন্য আমরা সব প্রতিষ্ঠানকে আমদানির তথ্য সম্বলিত স্টিকার ব্যবহারের কথা বলে আসছি।”
বিডি বাজেট বিউটিকে আগেও সতর্ক করা হয়েছিল জানিয়ে তিনি বলেন, “এদিনও তাদের অনেক পণ্যের গায়ে আমদানি তথ্য পাওয়া যায়নি। তারা আমদানির কাগজপত্রও দেখাতে পারেনি।

“আমরা তাদের কাছে আমদানির কাগজপত্র দেখতে চেয়েছি। তারা তাৎক্ষণিক তা দেখাতে পারেনি। তাদের অনেক পণ্যের গায়েই আমদানির তথ্য উল্লেখ নেই। তাই বসুন্ধরা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ করে তাদের দোকানটি আপাতত বন্ধ রাখতে বলেছি।”

এ ধরনের প্রসাধনীর আরও দোকান রয়েছে জানিয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের এই কর্মকর্তা বলেন, বিডি বাজেট বিউটির বিরুদ্ধে এই পদক্ষেপ সবার জন্য সতর্ক বার্তা।

travel

“আমরা তাদেরকে জরিমানা না করে সংশোধনের সুযোগ দিয়েছি। আগামীকাল আলোচনা করে তাদের বিষয়ে করণীয় ঠিক করব। আর আমদানির তথ্য দেখাতে না পারলে বড় ধরনের শাস্তির মুখে তাদের পড়তে হবে,” বলেন শাহরিয়ার।

এ বিষয়ে বক্তব্যের জন্য বিডি বাজেট বিউটির নম্বরে ফোন করলে তাদের একজন কর্মকর্তা ধরলেও কিছু বলতে রাজি হননি।

এদিকে বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্সে পণ্যের মোড়কে উৎপাদন ও মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ, খুচরা মূল্য ও আমদানিকারকের স্টিকার না থাকায় বার্মিজ জেমসকে ১০ হাজার, ম্যাক্স কসমেটিকসকে ২০ হাজার টাকা, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য প্রক্রিয়াকরণের অপরাধে কড়াই গোস্তকে ৫০ হাজার টাকা, ইন্ডিয়ান স্পাইসিকে ৩০ হাজার টাকা, স্পাইসি ফ্রাইড চিকেনকে ৩০ হাজার টাকা, কোরিয়ান কিউজিনকে ২০ হাজার টাকা, দোসা কিংকে ৩০ হাজার টাকা, হ্যালো ফ্রাইড চিকেনকে ২০ হাজার টাকা, ইন্ডিয়ান শাহী মসলাকে ২০ হাজার টাকা, ইন্ডিয়ান দরবারকে ২০ হাজার টাকা, শর্মা হাউসকে ৩০ হাজার টাকা ও বিএফসিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

দোসা কিংয়ের মালিকপক্ষের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তারা ফোন ধরেননি।

তবে স্পাইসি ফ্রাইড চিকেনের দোকানি সুজাত বলেছেন, “আমরা বিদেশ থেকে আমদানি করা ফ্রেঞ্চ ফ্রাই বিক্রি করে থাকি। কিন্তু এখানে যে আমদানিকারকের তথ্য থাকতে হবে, সে বিষয়টা আমাদের জানা ছিল না। নতুন নতুন নিয়ম হবে সেটা তো আমাদের জানতে হবে।”

এছাড়া মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করার অপরাধে মডার্ন পারল প্যালেসকে ১০ হাজার টাকা, শেষ দর্শন আজমেরী জেমসকে ৫০ হাজার টাকা, সঙ্গিনী ডায়মন্ডকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী যথাযথ সেবা না দেওয়ায় অলংকার নিকেতনকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *